শেষ মুহুর্তের পরিচর্যায় ব্যস্ত চাষীরা সাপাহারে গমের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা


DBkhobor24 প্রকাশের সময় : মার্চ ১, ২০২২, ২:৩৬ PM /
শেষ মুহুর্তের পরিচর্যায় ব্যস্ত চাষীরা সাপাহারে গমের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

স্টাফ রিপোর্টারঃ

সারাদেশের কৃষি খাতে গুরুত্বপ‚র্ণ ভ‚মিকা রেখে চলেছে নওগাঁ জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা সাপাহার উপজেলা। এই অঞ্চলে নানা ধরণের কৃষিপণ্য উৎপাদন হয়ে থাকে। যার মধ্যে একটি জায়গা দখল করেছে গম চাষ। চলতি মৌসুমে বিস্তৃত মাঠ জুড়ে চাষ করা হয়েছে গম। মৌসুম প্রায় শেষের পথে হওয়ায় গমের বাম্পার ফলনের আশা করছেন এলাকার গমচাষীরা।

মৌসুমের শুরুতে হঠাৎ ঝড়বৃষ্টি হওয়ায় কিছু কিছু এলাকায় গমের বেশ ক্ষতি হয়েছে। তবে শেষ সময়ে এসে আবহাওয়া ভালো থাকায় সন্তোষ প্রকাশ করছেন গমচাষীরা। ভালো ফলন পাবার আশায় শেষ সময়ে এসে গমের পরিচর্যায় ব্যাস্ত সময় পার করছেন কৃষকেরা। আবহাওয়া অনুক‚লে থাকলে গমের ফলন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশাবাদী তারা।

সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার গম ক্ষেত গুলোতে ঘুরে জানা যায় মৌসুম শেষের দিকে এসে কৃষকেরা গমের ফলন বৃদ্ধির লক্ষ্যে ও গমের দানা পরিপুষ্ট করতে জিংক জাতীয় কীটনাশক স্প্রে করছেন। এছাড়াও উড়ানি পোকা ও রোগ বালাই-দমনের ক্ষেত্রে তৎপর ভাবে বালাইনাশক ব্যবহার করছেন। এছাড়াও গম ক্ষেতের পরিচর্যার কোন ঘাটতি নেই কৃষকদের মাঝে।

উপজেলার কাশিতাড়া গ্রামের গমচাষী ইসাহাক আলী,আজগর আলী জানান, শুরুতেই বৃষ্টির কারনে গমের কিছুটা ক্ষতি হয়েছে। তবে পরবর্তী সময়ে আবহাওয়া ভালো হয়। আবহাওয়া পরিবর্তন না হলে এবার গমের ভালো ফলন পাওয়া যাবে।

একই গ্রামের কৃষক মোকলেছুর রহমান বলেন, গমের দানা পরিপুষ্ট হতে শুরু করেছে। আর কিছুদিরে মধ্যেই গম কাটা-মাড়ার কাজ শুরু হবে। শেষ সময়ে এসে আমরা গমের বিভিন্ন প্রকার পরিচর্যা করছি। এবছরে গমের বাম্পার ফলনের আশা করছি।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ শাপলা খাতুন জানান, চলতি বছরে এই উপজেলায় গম চাষ হচ্ছে ৪ হাজার ২ শত ৭৫ হেক্টর জমিতে। প্রতি হেক্টরে গম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩.৬০ মেট্রিক টন। প্রতি বিঘায় গড়ে ১৬/১৭ মন হারে গম উৎপাদন হতে পারে। এই বছরে সরকারীভাবে ১হাজার ৬শ’ জন কৃষককে গমের প্রনোদনার আওতায় আনা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, আবহাওয়ার অবনতি না ঘটলে এই বছরে গত বছরের তুলনায় গমের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে। এছাড়াও এলাকার গমচাষীদের সব রকম পরামর্শ উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদদপ্তরের পক্ষ থেকে অব্যহত রয়েছে।

এলাকার একাধিক গমচাষীরা জানান, বুকভরা আশা নিয়ে গমের পরিচর্যা করছেন তারা। এই অঞ্চলে গত বছরে গমের বাম্পার ফলন হয়েছে। চলতি বছরে ঝড় বৃষ্টি না হলে এবং আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে গত বছরের ন্যায় গমের বাম্পার ফলন হতে পারে এমনটি জানান তারা।