লিংক রোডে পাহাড়ি ছড়ার ভূমি দখল করে দেয়াল নির্মাণ


DBkhobor24 প্রকাশের সময় : মার্চ ১৫, ২০২২, ৩:২২ PM /
লিংক রোডে পাহাড়ি ছড়ার ভূমি দখল করে দেয়াল নির্মাণ

মো.শফিকুল ইসলাম,চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রাম নগরের বায়েজিদ লিংক রোড (৬ নং ব্রিজ সংলগ্ন) এলাকায় পাহাড় কাটায় নুর উদ্দিন নামে একজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। সংস্থাটির চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের পরিদর্শক মো. মনির হোসেন বাদি হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

অভিযুক্ত নুর উদ্দিন একই এলাকায় পাহাড়ি ছড়ার অধিকাংশ ভূমি দখল করে দেয়াল নির্মাণ করেছে। এ বিষয়ে সিডিএর মতামত চাইবে পরিবেশ অধিদপ্তর। এরপর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। অভিযুক্ত নুর উদ্দিন, ৭/ডি ষোলশহর, নাসিরাবাদ এলাকার মরহুম মোহাম্মদ শামছুল হকের পুত্র।

এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগরের উপ-পরিচালক মিয়া মাহমুদুল হক দেশবাংলা কে বলেন, এখানে দুটো বিষয়। প্রথমত পাহাড় কাটা, দ্বিতীয়ত ছড়ায় বাঁধ দিয়ে পানি নিষ্কাশনে বাধা দেয়া। পাহাড় কাটার বিষয়টি সুস্পষ্ট হওয়ায় মামলা করেছি। তিনি বলেন, যে স্থাপনা করেছে সেখানে সিডিএর একটি ব্রিজ করার কথা। সেখান থেকে বুঝা যায় এটা পানি নিষ্কাশনের পথ। তাই এ বিষয়ে সিডিএর মতামত চাইবো। মতামত পাওয়ার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নিব।

পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত ৬ মার্চ বায়েজিদ লিংক রোড (৬নং ব্রীজ সংলগ্ন) এলাকায় পাহাড় অথবা টিলা (মৌজা- উত্তর পাহাড়তলী, বিএস দাগ ১৮৬) কাটার অভিযোগে সরেজমিনে পরিদর্শন করেন পরিবেশ অধিদপ্তরে একটি টিম। পরিদর্শনে দেখা যায়, অভিযুক্ত নুর পাহাড় অথবা টিলা কেটে রিটেইনিং দেয়াল নির্মাণ করেছেন। ওইদিন নুর উদ্দিনকে নোটিশ দিয়ে শুনানিতে হাজির হতে বলা হয়।

গত রোববার পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এতে নুর উদ্দিনের পক্ষে আবদুল হক এবং মো. মহিউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন। শুনানিতে পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের পরিচালক হিল্লোল বিশ্বাস পাহাড় অথবা টিলা কাটায় নিয়মিত মামলা দায়ের করার আদেশ দেন। এর প্রেক্ষিতে গতকাল মামলা দায়ের করা হয়।

এদিকে পাহাড়ি ছড়ায় দেয়াল নির্মাণ প্রসঙ্গে হিল্লোল বিশ্বাস স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অভিযুক্ত নুর উদ্দিন একই দাগে ছড়ার অধিকাংশ ভূমি দখল (শতকরা হিসাবে প্রায় ৮০ শতাংশ) করে দেয়াল নির্মাণ করেছে। দখলকৃত ভূমি বরাবর উত্তরপাশে বায়েজিদ লিংক রোডের ৬নং ব্রীজ অবস্থিত বিধায় দখলকৃত এই ছড়াটি সংশ্লিষ্ট এলাকার পানি নিষ্কাশনের পথ বলে প্রতীয়মান হয়। ফলে দেয়াল নির্মাণের ফলে পানি প্রবাহে বাধা সৃষ্টি করে সংশ্লিষ্ট এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হবে।