ভোক্তা অধিদপ্তরের জরিমানা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে সহজ ডটকমের রিট


DBkhobor24 প্রকাশের সময় : জুলাই ২৬, ২০২২, ৭:৪৭ PM /
ভোক্তা অধিদপ্তরের জরিমানা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে সহজ ডটকমের রিট

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকঃ

রেলের টিকিট ও বিভিন্ন অব্যবস্থাপনা নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থী মো. মহিউদ্দিন হাওলাদার রনির করা অভিযোগের ভিত্তিতে সহজ ডটকমকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। তবে এ জরিমানার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) সহজ ডটকমের পক্ষে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় ব্যারিস্টার তানজিবুল আলম এ রিট দায়ের করেন। তানজিবুল আলম নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রিটে জরিমানার আদেশ স্থগিতের পাশাপাশি এ আদেশ কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারির প্রার্থনা করা হয়েছে। রিটে বাণিজ্য সচিব ও ভোক্তার অধিকারসহ চারজনকে বিবাদী করা হয়েছে।

এ বিষয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবির লিটনের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে বলে জানিয়েছেন রিটকারী আইনজীবী।

টাকা কেটে নিলেও ট্রেনের টিকিট না পাওয়ার অভিযোগে গত ৭ জুলাই থেকে ঢাবির শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন রনি কমলাপুর রেলস্টেশনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। রেলের অব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে ৬ দফা দাবিতে এ কর্মসূচি শুরু করেন রনি।

রনির অভিযোগের পর ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর গত ২০ জুলাই রেলের টিকিট বিক্রির দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান সহজ ডটকমের বিরুদ্ধে গ্রাহক অবহেলার প্রমাণ পাওয়ায় ২ লাখ টাকা জরিমানা করে। রাজধানীর কারওয়ান বাজারে অধিদপ্তরের কার্যালয়ে শুনানি শেষে এ জরিমানা করা হয়।

পরে এক ব্রিফিংয়ে সংস্থার মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান বলেন, আইন অনুযায়ী ভোক্তার প্রতি সহজের অবহেলা পাওয়া গেছে। সহজের এই অবহেলা প্রমাণ হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটিকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ভোক্তা অধিকার আইন অনুযায়ী, জরিমানার ২৫ শতাংশ অর্থ দেওয়া হবে অভিযোগকারী রনিকে। অর্থাৎ তিনি পাবেন ৫০ হাজার টাকা।

‘সহজ যে সিস্টেমে অপারেট করে, সেটা কতটা ভোক্তাবান্ধব, বিশেষজ্ঞদের দিয়ে তা মূল্যায়ন করা হবে। যে ৫০ শতাংশ টিকিট অনলাইনে বিক্রি করার কথা তা পুরোপুরি অনলাইনে বিক্রি হয় কি না সেটিও খতিয়ে দেখা হবে।’

এদিকে গতকাল (সোমবার) টানা ১৯ দিন আন্দোলনের পর রেলের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দেন মহিউদ্দিন রনি।

একই দিন সহজ-জেভি সংবাদমাধ্যমে বিবৃতি দিয়ে রনির অভিযোগের বিষয়ে ব্যাখ্যা দেয়। সেই সঙ্গে প্রতিষ্ঠান দুটি দাবি করে, তারা গ্রাহকদের কোনো হয়রানি করে না। এমনকি রনির অভিযোগের পর মাত্র দুই মিনিটের মধ্যেই তারা ব্যবস্থা নিয়েছে।

এ সময় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর যে জরিমানা করেছে, সেই রায় চ্যালেঞ্জ করার কথাও জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

হাইকোর্ট ভোক্তা-অধিকার জরিমানা