দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বোগতির প্রতিবাদে মোহনপুরে পুলিশি বাঁধায় পন্ড লিফলেট বিতরণ


DBkhobor24 প্রকাশের সময় : মার্চ ১২, ২০২২, ৫:৩৮ PM /
দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বোগতির প্রতিবাদে মোহনপুরে পুলিশি বাঁধায় পন্ড লিফলেট বিতরণ

আবুল হাসেম, রাজশাহী।

সারা দেশে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বোগতির প্রতিবাদে জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ে ন্যায্যমূল্যে পর্যাপ্ত দ্রব্যসামগ্রী বিক্রির দাবিতে সারা দেশে ১১ দিনের কর্মসূচি দিয়েছে বিএনপি। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে উপজেলা পর্যায়ে গত ৫ মার্চ থেকে চলছে কর্মসূচি।

এরই ধারাবাহিকতায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে মোহনপুর উপজেলা বিএনপি ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের আয়োজনে ১২ মার্চ শনিবার সকাল ১১টায় উপজেলা সদর একদিলতলা হাটে দলীয় নেতা কর্মীদের নিয়ে লিফলেট বিতরণ করতে গেলে মোহনপুর থানা পুলিশের বাঁধায় তা পন্ড হয়ে গেছে।
পুলিশি বাঁধার কারণে উপজেলার কোন জায়গায় লিফলেট বিতরণ করতে পারেনি বিএনপি নেতৃবৃন্দরা।

মোহনপুর উপজেলা বিএনপি দ্রব্যমূল্যে ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদ কর্মসূচিতে যোগ দেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রান ও পূর্ণবাসন বিষয়ক সহ সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাড.শফিকুল হক মিলন, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি, জেলা যুবদলের সাবেক আহবায়ক,জেলা বিএনপি’র সদস্য আনোয়ার হোসেন উজ্জ্বল, জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুস সামাদ,

থানা বিএনপির আহবায়ক সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুব আর রশিদ, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজিম উদ্দিন, কৃষকদলের আহবায়ক গোলাম মোস্তফা বাবলু, জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, কেশরহাট পৌর বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক খুশবর রহমান, পবা উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি, সাবেক চেয়ারম্যান শাহাজান আলী, মোহনপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম, যুগ্ম আহবায়ক মাহফুজ আলম শিমুল, শ্রমিক দলের সভাপতি মোজাম্মেল হক তেলপু, জাহানাবাদ ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি জিল্লুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক তাজউদ্দীন আহমদ,

রাজশাহী জেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক সাদ্দাম হোসেন, কেএইচ রানা শেখ, মোহনপুর থানা ছাত্রদলের সদস্য সচিব মাহমুদুল হাসান রুবেল, যুগ্ম আহবায়ক আরিফ সরকার, ধুরইল ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি ইসমাইল হোসেন মধু, যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক একরামুল হক রিপন, সাদ্দাম, আরিফ হোসেনসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

প্রতিবাদ কর্মসূচীতে এ্যাড শফিকুল হক মিলন বলেন, ‘এই সরকারের কোথাও কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। তাদের যেমন বাজারের ওপর নিয়ন্ত্রণ নেই, একইভাবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণ নেই। দুর্নীতির কারণে এমন একটা পর্যায় চলে গেছে যে জিনিসপত্রের দাম প্রতিটি ক্ষেত্রে বেড়ে যাচ্ছে।’ সিন্ডিকেটগুলো কৃত্রিমভাবে জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে উল্লেখ করে সরকারের চরম দুর্নীতির কারণে প্রভাব বাজারে গিয়ে পড়ছে এবং জনগণকে তার মাশুল দিতে হচ্ছে।