দীর্ঘ ১১ বছর পর চাঞ্চল্যকর চেয়ারম্যান হত্যা মামলার আসামি গ্রেফতার


DBkhobor24 প্রকাশের সময় : মার্চ ২১, ২০২২, ৬:৩১ PM /
দীর্ঘ ১১ বছর পর চাঞ্চল্যকর চেয়ারম্যান হত্যা মামলার আসামি গ্রেফতার

মো.শফিকুল ইসলাম,চট্টগ্রাম:

দীর্ঘ ১১ বছর ধরে পলাতক চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়ার নলুয়া ইউনিয়নের চাঞ্চল্যকর আফসার চেয়ারম্যান হত্যা মামলার ওয়ারেন্টসহ মোট ৬ টি মামলার অন্যতম আসামি মোঃ সরোয়ার সালামকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম

২০১১ সালের ২৬ ডিসেম্বর রাতে চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার নলুয়া ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং সাতকানিয়া জাফর আহম্মদ চৌধুরী ডিগ্রি কলেজের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক নুরুল আফসারকে নিজ বাড়িতে একদল ঘাতক চক্র গুলি করে নৃশংসভাবে হত্যা করে। এ ঘটনায় নিহতের পিতা আহমেদ হোসেন চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন যার মামলা নং- ২৬(১২)১১ তারিখ এপ্রিল ২০১১, ধারা ৩০২/১০৯/৩৪ দন্ডবিধি ১৮৬০। উক্ত ঘটনাটি তখন প্রিন্ট ও ইলেট্রিক মিডিয়াসহ নিহত চেয়ারম্যানের এলাকা তথা সারাদেশে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে।

ঘটনাটি সংগঠিত হওয়ার পর থেকে উপরোক্ত হত্যা মামলার এজাহারনামীয় ৩নং আসামি
মো.সরোয়ার সালাম বিভিন্ন জায়গায় পলাতক থাকে। মো.সরোয়ার সালাম নলুয়া এলাকার
কুখ্যাত অপরাধী ছিলেন। হত্যাকান্ডের পর থেকে সে সাতকানিয়া থেকে নিখোঁজ হয়ে চট্টগ্রাম শহরে বসবাস শুরু করে। গত ১১ বছর ধরে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় নিয়মিত বাসা পরিবর্তন করে বসবাস করত। র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, উক্ত মামলার এজাহারনামীয় ৩নং পলাতক আসামি মো.সরোয়ার সালাম চট্টগ্রাম জেলার বাকলিয়া এলাকায় ব্যবসা করার কথা বলে পলাতক অবস্থায় আছে।

উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গত ২০ মার্চ ২০২২ইং তারিখ আনুমানিক রাত ৭:৩০ ঘটিকায় র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম এর একটি আভিযানিক দল বর্ণিত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে আসামী মো.সরোয়ার সালাম (৩৬), পিতা- মৃত আঃ সালাম, সাং- পূর্ব নলুয়া,থানা- সাতকানিয়া, জেলা-চট্টগ্রামকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এই কুখ্যাত অপরাধী আসামি মো.সরোয়ার সালাম বিগত ১১ বছর ধরে নিজ এলাকার ছেড়ে বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান পরিবর্তন করে পালিয়ে থেকেও র‍্যাব সদস্যদের বিচক্ষণতার কারনে গ্রেফতার এড়াতে পারেনি।

উল্লেখ্য যে, সিডিএমএস পর্যালোচনা করে উক্ত আসামীর বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া থানায় বিভিন্ন অপকর্মের মোট ০৫ টি মামলা পাওয়া যায়।

গ্রেফতারকৃত আসামী সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের নিমিত্তে চট্টগ্রাম জেলার সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।