ডিমলায় বোরো ধান বীজ উৎপাদনে কৃষি বিভাগের সহায়তা প্রদান


DBkhobor24 প্রকাশের সময় : মার্চ ২২, ২০২২, ১:১৩ PM /
ডিমলায় বোরো ধান বীজ উৎপাদনে কৃষি বিভাগের সহায়তা প্রদান

নুর কাইয়ুম, স্টাফ রিপোর্টারঃ

বোরো ধান বীজ উৎপাদন প্রদর্শনী করে লাভের মুখ দেখতে চায় তিস্তা পারের কৃষক। টেকসই উন্নয়ন দেশ গড়তে কৃষি খাত উন্নতি সাধনের বিকল্প নেই। তাদের সচল রাখতে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলা কৃষি বিভাগ অদম্য প্রচেষ্টা ও বোরো ধান বীজ উৎপাদনে কৃষি সহায়তা অব্যাহত রেখেছেন।

তারই ধারাবাহিকতায় উপজেলার ৭ নং খালিশা চাপানি ছোটখাতা মৌজায় কৃষক মোঃ রফিকুল ইসলাম এর ১৫ বিঘা জমিতে বোরো ধান বীজ উৎপাদন প্রদর্শনী করা হয়।

এ প্রদর্শনীতে কি পরিমাণ লাভের মুখ দেখতে চান এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কৃষক মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, আধুনিক প্রদর্শনের মাধ্যমে আমরা গত বছরও কৃষিকর্মকর্তা (কৃষিবিদ) সেকেন্দার আলী স্যার এর সহযোগিতায় এবং উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা আল মাহমুদুল হাসান ভাইয়ের সহায়তায় ব্রী ধান ৮৯ বীজ উৎপাদন ও সংরক্ষণ করি এবং কৃষকদের মাঝে ছড়িয়ে দেই।এবারও কৃষিবিদ স্যারের সহায়তায় আরও আধুনিক উন্নত জাতের ব্রি ধান ৭৪ প্রদর্শনী করছি। আল্লাহর কাছে আশাবাদী এই বীজ উৎপাদন করে মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের মাঝে ছড়িয়ে দেবো। তবে সরকার যদি এ ব্যাপারে আমাদের ন্যায্য মূল্য দেয়, তাহলে আমরা আরো উন্নত হব।

এ ব্যাপারে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আল মাহমুদুল হাসান, তিনি বলেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ডিমলা কর্তৃক ১৫ বিৃঘার এটি বীজ উৎপাদন প্লোট। যা আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে ধান,গম,পাট,বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণ করা হবে। এর জন্য উপজেলা কৃষি অফিস ডিমলা এর সৌজন্যে চাষাবাদের যে সব ম্যাটেরিয়ালস সাপোর্ট তা আমরা কৃষকদের মাঝে দিয়েছি। এ বীজ গুলো আমাদের কৃষি উৎপাদনে দেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখবে। কৃষকগন তারা তাদের চাহিদা পূরণের পাশাপাশি বারতি আয় করতে পারবেন।

এসময় কৃষি কর্মকর্তা (কৃষিবিদ) সেকেন্দার আলী বলেন, ব্রি ধান ৭৪ হচ্ছে জিংক সমৃদ্ধ ধান । এতে ব্লাস্ট কম আক্রান্ত হয়। উক্ত এলাকায় যদি ফসল বৃদ্ধি পায় তাহলে আগামীতে আমরা বাজারে বিভিন্ন কম্পানির হাইব্রিড জাতো যে প্যাকেট গুলো পাচ্ছি সে গুলোর চেয়ে কৃষক এই জাতটাকে বেশি গ্রহন করবে এবং কৃষকগন তা নিজেই বীজ সংরক্ষণ করবে বলে আমি আশা করি।