এ আর রহমানের কনসার্টের নাম ‘ক্রিকেট সেলিব্রেটস মুজিব হান্ড্রেড’


DBkhobor24 প্রকাশের সময় : মার্চ ২২, ২০২২, ৮:৩৮ PM /
এ আর রহমানের কনসার্টের নাম ‘ক্রিকেট সেলিব্রেটস মুজিব হান্ড্রেড’

বিশেষ সংবাদদাতাঃ

দেখতে দেখতে সময় ঘনিয়ে এলো। ভারতের বিশ্বখ্যাত সঙ্গীতজ্ঞ এ আর রহমানের কনসার্টের আর এক সপ্তাহও বাকি নেই। সব ঠিক থাকলে আগামী ২৯ মার্চ মঙ্গলবার শেরে বাংলায় অনুষ্ঠিত হবে এ আর রহমানের কনসার্ট।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ইঙ্গিত দিলেন ওই কনসার্টে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও উপস্থিত থাকতে পারেন। কনসার্টটির নামকরণ করা হয়েছে ‘ক্রিকেট সেলিব্রেটস মুজিব হান্ড্রেড’ নামে।

কত হাজার দর্শক এ কনসার্ট মাঠে ও গ্যালারিতে বসে সরাসরি দেখতে পাবেন? কত হাজার টিকিট ছাড়া হতে পারে? এসব নিয়ে কথা বলতে গিয়ে নাজমুল হাসান পাপন জানান, এ জায়গায় আসলে ইচ্ছা করলেও দর্শক বেশি দেওয়া যায় না। এ আর রহমানের যে স্টেজ হয় আশপাশের গ্যালারিতে দর্শক দেওয়া যায় না। কাজেই দর্শক সংখ্যা থাকবে খুব সীমিত।’

সালমান খান আর ক্যাটরিনা কাইফের স্টেজ শো আগে যেভাবে করা হয়েছে, সে প্রসঙ্গ টেনে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘গতবার যেমন আমরা করেছিলাম সালমান খান এবং ক্যাটরিনা কাইফের সময় অলমোস্ট সে রকম হবে। মাঠের ভেতরে থাকবে পাঁচ হাজার। মাঠের বাইরে গ্যালারি, গ্র্যান্ডস্ট্যান্ড ও বিভিন্ন এনক্লোজার মিলে চার-পাঁচ হাজারেরর মতো। আমার ধারণা সর্বোচ্চ ৮ থেকে ১০ হাজারের মতো দর্শক থাকতে পারে।‘

এদিকে দর্শক সংখ্যা নিয়ে কথা বলতে গিয়েই বিসিবি সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রসঙ্গ তোলেন। তিনি বলেন, ‘কতগুলো চেয়ার বসানো যাবে, এখনো এটা বলা মুশকিল। যেহেতু প্রধানমন্ত্রী আসার কথা সেহেতু আমাদের এসএসএফ’র সাথেও কথা বলতে হবে। তাদের রিকোয়ারমেন্ট, রেস্টটিকশনস জেনে আমাদের অ্যারেঞ্জ করতে হবে।’

এ আর রহমানের কনসার্টে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিত থাকার বিষয়টি উপস্থাপন করে পাপন বলেন, ‘আসলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের জন্য এই মার্চ মাসই শেষ। আমাদের সরকার থেকে এটাই ঘোষণা করা হয়েছিল। এই সময়ের ভেতরে যতগুলো টুর্নামেন্ট হয়েছে সবগুলো আমরা জাতির জনকের নামেই করেছি। এমনকি আমরা দেশের বাইরেও শ্রীলংকা সিরিজে যেটা করেছিলাম, জিম্বাবুয়ে ও নিউজিল্যান্ডে ব্র্যান্ডিংটা করতে পেরেছিলাম, মুজিব হান্ড্রেড।’

‘এখন আমাদের একটা জায়গায় শেষ করতে হবে। ফিনিংশিংটা চাচ্ছিলাম যে আমরা করব। এটার পেছনে আর একটা বড় কারণ হলো দুটো গান আমরা ইতোমধ্যেই বঙ্গবন্ধুর নামে করিয়েছি। একটা গান এরই মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শুনেছেনও। ভারতের প্রধানমন্ত্রী যেদিন এসেছিলেন সেদিন।’

‘তো ওই গানটা, আরেকটা বাংলা গান। লাইভ না হলে তো আসল জিনিসটা পাওয়া যায় না, ভিডিওটা পাওয়া যায় না। আমরা পেয়েছি অডিও সে (এ আর রহমান) করে পাঠিয়েছে। তো এখন সেটাই চাচ্ছি, এগুলো যেহেতু করেছি এখন সে যদি লাইভ করতে পারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি আসেন তাহলে এটা দিয়ে আমরা শেষ করতে চাই। নামটাও হচ্ছে ‘ক্রিকেট সেলিব্রেটস মুজিব হান্ড্রেড।’ আপাতত ঠিক করেছি এই নামেই আমরা অনুষ্ঠানটা করব।’

প্রধানমন্ত্রীর বাইরে আর কোনো আমন্ত্রিত অতিথি থাকবেন ওই আয়োজনে? বিসিবি সভাপতির জবাব, ‘না, এখন পর্যন্ত কিছুই ঠিক হয়নি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে আমার কোনো কথাই হয়নি। ঠিক করেছি কাল যাব। এখন কিছু বলাটা অনেক অগ্রিম হয়ে যাবে। দু’দিন পরে বলতে পারব।’

বঙ্গবন্ধু মুজিববর্ষ বিসিবি বিসিবি-সভাপতি