অযত্নে অবহেলায় পরে আছে রামনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার


DBkhobor24 প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ২১, ২০২২, ৪:১৬ PM /
অযত্নে অবহেলায় পরে আছে রামনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার

স্টাফ রিপোর্টার:

“আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি….।” সত্যিই দেশপ্রেমিক কেউ ভুলতে পারে না একুশে ফেব্রুয়ারির দিনটি। গোটা জাতিই তার বীর ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে, শ্রদ্ধার ফুলে ফুলে ভরে উঠে শহীদ মিনারগুলো।

কোথাও আবার শহীদ মিনার না থাকায় দেয়ালে শহীদ মিনারের ছবি এঁকে শ্রদ্ধা নিবেদনের মতো ঘটনাও ঘটেছে। তবে রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারির দিনটির কথা বেমালুম ভুলতে দেখা গেছে নীলফামারী জেলা সদরের রামনগর ইউনিয়ন এর রামনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের। সেখানে শহীদ মিনার থাকলেও ভাষা শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কেউ ফুল দিয়ে আসেনি। অযত্ন আর অবহেলায় পড়ে রয়েছে শহীদ বেদী।

সোমবার (২১ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১ টায় গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষ তালাবদ্ধ। কোনো শিক্ষক বা শিক্ষার্থীরই দেখা নেই। ময়লা আবর্জনায়, ইটের খোয়ায় অরক্ষিত শহীদ মিনারের বেদিতে কোনো ফুল নেই। দেখানো হয়নি ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা।পরে স্থানীয় একটি কিন্ডার গার্টেনের পক্ষ থেকে পুষ্প মাল্য অর্পণ করা হয়।

বিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, স্যারেরা তো একুশে ফেব্রুয়ারি সম্পর্কে কিছু জানাননি। আমরা তাই ফুল দিতে যাইনি।

রামনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাবু জানান, মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করার কথা থাকলেও কেনো ওই প্রতিষ্ঠান করে নাই এ বিষয়ে আমি তাদের সাথে কথা বলবো।

রামনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ওহেদুল ইসলাম ও সভাপতি মোঃ আসাদুত জামান এর মোবাইল ফোনে কল দিলে তারা ফোন ধরেনি।

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: শফিকুল ইসলাম বলেন,বিষয়টি সাংবাদিকদের মাধ্যমে জানতে পেরেছি।কেননা সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের কর্মসূচি পালন করার নির্দেশ দিয়েছিলাম।কিন্তু ওই প্রতিষ্ঠান যেহেতু পালন করেন নাই, তাই সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।